বুধবার, ১৫ Jul ২০২০, ০৬:১৪ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
আমার মৃত্যুর জন্য দায়ী R.J অমিত ফেসবুকে আত্মহত্যার হুমকি তরুনীর

আমার মৃত্যুর জন্য দায়ী R.J অমিত ফেসবুকে আত্মহত্যার হুমকি তরুনীর

ভারতের কলকাতায় প্রেমের নামে প্রতারণা করার অভিযোগ উঠল এক রেডিও জকির বিরুদ্ধে। সোশ্যাল মিডিয়ায় অমিতাভ রায়চৌধুরি ওরফে আরজে অমিতের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে আত্মহত্যার হুমকি দিলেন এক যুবতী। এমনকী নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে এও লিখে দেন, তাঁর মৃত্যুর জন্য দায়ী থাকবেন ওই আরজে-ই।

মঙ্গলবার থেকে ওই রেডিও জকিকে দুষে গায়ে কাঁটা দেওয়ার মতো একের পর এক পোস্ট করতে থাকেন ওই যুবতী। ঋতু রায় চৌধুরির নামের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে এই পোস্টগুলি করা হয়েছে। যিনি পেশায় ফটোগ্রাফার। ফেসবুকে কখনও হাত কাটার ছবি আপলোড করেছেন, তো কখনও হাতের তালুতে খান দশেক ট্যাবলেট রেখে ছবি পোস্ট করেছেন। ইঁদুর মারার বিষ পর্যন্ত ছাড়েননি তিনি। বেলা তিনটে থেকে ফেসবুকে আরজে অমিতের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগের বাণ ছুঁড়তে শুরু করেন তিনি। প্রথম পোস্টে লেখেন, “আমি স্বেচ্ছায় যাচ্ছি, হয়তো আর ফেরা হবে না।” তারপর ইঁদুর মারার বিষ থেকে ঘুমের ওষুধের ছবি পোস্ট করেন। শেষ পোস্টটিতে লেখেন, “আমার মৃত্যুর জন্য দায়ী থাকবে শুধুমাত্র আরজে অমিত।”

তার মধ্যে আবার ফেসবুকে একটি লাইভও করেন ওই যুবতী। কিন্তু নিজের চেহারা দেখাননি তিনি। তাঁর বক্তব্য, স্ত্রীর সঙ্গে শুধু কাগজে-কলমে সম্পর্ক রয়েছে বলে দিনের পর দিন আরজে অমিত তাঁর সঙ্গে প্রেম চালিয়ে যান। এও বলেছিলেন, স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়ে গিয়েছে। শুধু আইনি প্রক্রিয়ায় ডিভোর্স বাকি। এমনকী আরজে অমিত আর ওই যুবতী শাস্ত্র মতে বিয়েও করেছেন বলে দাবি যুবতীর। কিন্তু এখন অমিতাভ রায়চৌধুরি সেই সম্পর্ক মানতে অস্বীকার করছেন। শেষ পোস্টটি দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। একের পর এক কমেন্ট পড়তে থাকে সেখানে। ওই যুবতীর ফেসবুকের বন্ধুরা তাঁর বাড়ির লোকেদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টাও করেন। কয়েকজন কমেন্টে জানান ওই যুবতীর দিদির সঙ্গে কথা হয়েছে, তিনি ঠিক আছেন। কিন্তু সেখানেই তো শেষ নয়। যাঁর বিরুদ্ধে এত অভিযোগ তাঁর প্রতিক্রিয়ার অপেক্ষায় রয়েছেন সকলে। তবে ওই যুবতীর এহেন কার্যকলাপ দেখে অনেকেরই বক্তব্য, এটা যে সম্পূর্ণ সত্যি তা বলা কঠিন।

প্রথমত অভিযোগকারিণী একতরফা অভিযোগ করেছেন। সেখানে কোনও প্রমাণ নেই। ঘটনা যদিও বা সত্যি ধরে নেওয়া হয়, ফেসবুক প্রোফাইলটি ভুয়ো কি না তা এখনও নিশ্চিতভাবে বলা যাচ্ছে না। কেউ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ওই রেডিও জকিকে বিপাকে ফেলার জন্যও এমনটা করে থাকতে পারে। এ আশঙ্কাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। যুবতীকে পুলিশে যাওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন অনেকে।

খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2019 Ittefaq24.Com
Design & Developed BY Host R Web